শারীরিক শিক্ষা কাকে বলে

শারীরিক শিক্ষা কাকে বলে

 শারীরিক শিক্ষা হলো শারীরিক ক্রিয়া এবং কার্যকলাপ এর মাধ্যমে শিক্ষা প্রদান যা একজন ব্যক্তির শারীরিক দক্ষতা, এটা স্বাস্থ্য এবং ফিজিক্যাল ফিটনেসে মানাবস্থা উন্নত করে।

শারীরিক শিক্ষা
শারীরিক শিক্ষা

যেসব কারণে শারীরিক শিক্ষা গুরুত্বপূর্ণ

 শারীরিক শিক্ষা যেসব কারনে গুরুত্বপূর্ণ হতে পারে

০১। স্বাস্থ্য উন্নত করতেঃ  শারীরিক কার্যকলাপ এবং ব্যায়াম স্বাস্থ্য উন্নত করতে সাহায্য করে। এটি মানব 

শারীরিক ফিটনেস উন্নতি করে।

০২। মানসিক সুস্থতা অনুতাপ করতেঃ  শারীরিক শিক্ষা মানসিক সুস্থতার উন্নতি করতে সাহায্য করে।  একটি দুর্বলতা তাণ্ডব এবং মানসিক চাপ সামলাতে সাহায্য করতে।

০৩।  দক্ষতা ও দক্ষতার উন্নত করতেঃ  শারীরিক ক্রিয়ার মাধ্যমে দক্ষতা তাত্ত্বিক জ্ঞান এবং সামরিক দক্ষতা উন্নত করা যায়।

০৪।  সোশ্যাল যোগাযোগ উন্নত করতেঃ  শারীরিক কার্যকলাপ সম্পর্ক টাকা সম্বন্ধে সোশ্যাল যোগাযোগ উন্নত করতে সাহায্য করে।  এটি দস্তি সমাজ সাধারণের সাথে ভালো যোগাযোগ করতে সাহায্য করতে পারে।

০৫। জীবনযাত্রার সুস্থ অংশ বজায় রাখতেঃ  শারীরিক শিক্ষা প্রতিদিনের জীবনযাত্রার নিয়মিত একটি অংশ হিসেবে সম্মিলিত করা যেতে পারে, যা আরোগ্য কর এবং সুস্থ জীবনযাত্রা উন্নত করতে সাহায্য করতে পারে।

শারীরিক শিক্ষা
শারীরিক শিক্ষা

শারীরিক শিক্ষার শারীরিক প্রয়োজন

 শারীরিক শিক্ষা আপনার শারীরিক সুস্থতার জন্য গুরুত্বপূর্ণ।  এটি আপনার শরীরে যত্ন নেওয়া, শক্তি ও চাপ মোকাবেলা করা, স্বাস্থ্য করে জীবন যাপনের কৌশল   অর্জনে সাহায্য করে। নিয়মিত ব্যায়াম, স্বাস্থ্যকর খাদ্য, যত্ন নেওয়া, ব্যক্তিগত সাফাই এবং পর্যাপ্ত ঘুম, অধিকভাবে শারীরিক সুস্থতা উন্নত করতে সাহায্য করতে পারে। 

শারীরিক শিক্ষার মানসিক প্রয়োজন

 শারীরিক শিক্ষা মানুষের সুস্থতা জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।  এটি আপনার মানসিক স্বাস্থ্য উন্নত করে, মানসিক চাপ মোকাবেলা করতে সাহায্য করে এবং জীবনের সাফল্য ওজনের সাহায্য করে।  নিয়মিত ব্যায়াম, ধ্যান,ব্যক্তিগত সম্পর্কের সাথে সম্পর্ক স্থাপন, আত্ম উন্নতি করা, সৃজনশীলতা উন্নত করা এবং সময় নিজের জন্য রক্ষা করা মানসিক প্রয়োজনের সাহায্য পেতে পারে।

শারীরিক শিক্ষার সামাজিক প্রয়োজন

 শারীরিক শিক্ষা সামাজিক প্রয়োজনীয় মৌলয়।  এটি আপনার সামাজিক ক্ষমতা উন্নত করে, দৈহিক সম্পর্ক স্থাপনের সাহায্য করে এবং সামাজিক আশ্রয় সাধনে সাহায্য করে।  শারীরিক কৌশল অর্জনে দক্ষতা বৃদ্ধি, টিম কাজে অংশগ্রহণ, মানবীয় মামলা ও ব্যক্তিগত আত্ম উন্নতির মাধ্যমে এটি সামাজিক সম্পর্কের দিকে অগ্রগতি করতে সাহায্য করতে পারে।

শিক্ষাঙ্গনের শারীরিক শিক্ষা

ঙ্গনে শারীরিক শিক্ষা একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ, যা শিক্ষার সাধারণ অভিজ্ঞানকে প্রতিস্থাপন করে।  এটি ছাত্রছাত্রীদের কে নির্মিত ব্যায়াম এবং খেলাধুলা সহ আধুনিক শারীরিক শিক্ষা উপাদান দিতে সাহায্য করে।  এটি শারীরিক স্বাস্থ্য ও রহিত দক্ষতা এবং সামাজিক ক্ষমতার বিকাশে অবদান রেখে বিদ্যালয় জীবনের একটি পূরক ভূমিকা পালন করতে সাহায্য করে। 

শারীরিক শিক্ষা
শারীরিক শিক্ষা

শারীরিক শিক্ষার উদ্দেশ্য

 শারীরিক শিক্ষার উদ্দেশ্য হলো শারীরিক সুস্থতার অনুভূতি এবং অনুভূতির মাধ্যমে একজন ব্যক্তির পূর্ণতা ও সুস্থ জীবন যাপন সমর্থন করা।  এটি শারীরিক ক্ষমতা এবং যত্নের মাধ্যমে ব্যক্তির দৈহিক স্বাস্থ্য উন্নত করার লক্ষ্যে অনেকগুলি আসতে পারে যেমন বেয়াম, খাদ্য ও পোষণ আত্মসত্তা, শক্তির উন্নত করা এবং সামাজিক ক্ষমতা উন্নত করা। 

শারীরিক শিক্ষার সুবিধা

, শারীরিক শিক্ষা সুবিধা জনক এবং প্রয়োজনীয় যে যেন নীতিমূলক অংশ বজায় রাখা যায়।  এটি শক্তির প্রতিষ্ঠানে একটি ব্যবস্থাপনা অথবা শিক্ষার সিলেবাসে একটি অংশ হিসেবে থাকতে পারে।  শারীরিক শিক্ষার সুবিধা গুলি হতে পারে-

০১।  নিয়মিত সুবিধাঃ  শিক্ষা নিয়ে নিয়মিত ব্যায়ামের জন্য সঠিক সুযোগ অনুভব করা।  এটি শারীরিক সুস্থতা ও মানসিক সান্তনা উন্নত করতে সাহায্য করে।

০২।  খেলাধুলা এবং প্রতিযোগিতাঃ  বিদ্যালয়ে খেলাধুলা এবং প্রতিযোগিতার জন্য উপযুক্ত সুবিধা উপলব্ধ করা।  এটি ছাত্রছাত্রীদের পুরোহিত্য, দক্ষতা এবং ডিম ওয়ার্ক এর মাধ্যমে সামাজিক ক্ষমতা বৃদ্ধি করে।

০৩। শারীরিক শিক্ষার শিক্ষক ছাত্রছাত্রীর অংশগ্রহণঃ  শিক্ষকরা শারীরিক শিক্ষার ক্ষেত্রে অগ্রগ্রহ গ্রহণ করতে এবং ছাত্রছাত্রীদের উৎসাহিত করতে পারে, যা একটি সুস্থ শিক্ষাঙ্গন প্রস্তুত করতে সাহায্য করে।

০৪।  শারীরিক সৌন্দর্য সুবিধাঃ বিদ্যালয়ে শারীরিক শিক্ষার উপাধিত শিক্ষার্থীদের জন্য উপযোগী সৌন্দর্য সুবিধা অনুভব করার সুযোগই পারে, যা তাদের আত্মবিশ্বাস উন্নত করে।

 এই সুবিধা গুলি মিলাতে থাকলে শারীরিক শিক্ষা বৃদ্ধি করতে সাহায্য করতে পারে।