মানসিক চাপ দূর করার জন্য জরুরি ব্যায়াম

মানসিক চাপ কমানোর অন্যতম সেরা উপায় দৌড়ানো

ব্যায়াম
ব্যায়াম

 দৌড়ানো মানুষের চাপ কমাতে একটি অত্যন্ত প্রভাবশালী ব্যায়াম হতে পারে । এটি শারীরিক স্বাস্থ্য উন্নত করার সাথে মিলিয়ে মানসিক স্বাস্থ্য ও চাপ মোকাবেলা করতে সাহায্য করতে পারে।  দৌড়ানো মানুষের চাপ কমাতে আপনি নিম্নলিখিত উপায় গুলো প্রয়োজন করতে পারেনঃ

০১।  নিজেকে উন্নত করুনঃ  দৌড়ানোর মাধ্যমে নিজেকে উন্নত করতে যাচ্ছেন তা একটি শখ হিসেবে ধরা যেতে পারে।  নিজের লক্ষ্য ও উৎসাহ বাড়াতে পারে এবং এটি মানসিক চাপ কমাতে সাহায্য করতে পারে।

০২।  সবুজ শহরে দৌড়ানোঃ সবু শহরে দৌড়ানো আপনার মানুষের স্বাস্থ্য ও চাপ মোকাবেলা করতে সাহায্য করতে পারে।  ন্যাচারের সৌন্দর্য আপনার চিন্তা শক্তি দক্ষতা বাড়াতে সাহায্য করতে পারে।

০৩।  পর্যাপ্ত ঘুম পানঃ  পর্যাপ্ত ঘুম পাওয়া মানসিক চাপ কমাতে সাহায্য করতে পারি এবং দৌড়ানোর জন্য প্রয়োজনীয় শারীরিক সুস্থতা সহায়তা করতে পারে।

০৪। পুরস্কারের প্রতি মনোভাব দিনঃঃ  নিজেকে উন্নত করার লক্ষ্য নির্ধারণ করুন এবং প্রতি লক্ষ্য পৌঁছানোর পরে নিজেকে  পুরস্কার দিন।  এটি মোটিভেশন বাড়াতে সাহায্য করতে পারে।

০৫। লক্ষ্যের পরিবর্তন করুনঃ  সময়ের সাথে পরিবর্তন করতে সাহায্য করার জন্য নিজেকে নতুন দৃষ্টিকুণে দেখার চেষ্টা করুন।  সমস্যা গুলি একটি ছোট্ট দৃষ্টিকোণ থেকে দেখার চেষ্টা করতে পারেন।

 দৌড়ানো মানুষের চাপ কমাতে সাহায্য করতে পারে কারণ এটি শারীরিক ব্যান্ড হিসেবে কাজ করতে সক্ষম এবং মানসিক স্বাস্থ্যের সুস্থ প্রভাব ফেলতে পারে। 

মৌলিক আত্মরক্ষা কৌশল বা মার্শাল আর্ট

ব্যায়াম
ব্যায়াম

 মার্শাল আর্ট বা মৌলিক আত্মরক্ষা কৌশল গুলো একটি বিশেষ ক্ষেত্রে নিজেকে এবং অন্যান্য কে সুরক্ষিত রাখার জন্য প্রশিক্ষণ দেওয়ার একটি পদ্ধতি।  এই আদমশিল দক্ষতা বা প্রকৌশল এর মধ্যে অনেকগুলি আছে, যা প্রাথমিকভাবে বিরোধী হামলা সঙ্গে মৌলিক সুরক্ষা ও স্বাস্থ্য নীতির জন্য ডিজাইন করা হয়েছে।

মৌলিক আত্মরক্ষা কুশল এর মধ্যে অন্তর্ভুক্ত হতে পারে

০১।  বার্তা দিতে হাটাঃ  এটি আপনার কথায় আপনার আত্মরক্ষা করতে সাহায্য করতে পারে বিশেষভাবে ও সুরক্ষিত অবস্থা গুলির সাথে।  আপনি যখন সম্মুখ কোন জ্বর পর্যায়ে আসতে দেখছেন তখন যথাসাধ্য এবং সঠিকভাবে কথা বলার অনুশীলন করতে পারেন।

০২। শারীরিক সহনশীলতাঃ এটি আপনার শারীরিক দক্ষতা ও সহনশীলতার উন্নতি করতে সাহায্য করতে পারে অনুধাবন থেকে বাঁচা দুর্বলতা দ্বারা কাটাতে এবং অতিরিক্ত শক্তি তৈরি করতে যেমন পারপুর ও গর্দান  দরাতে।

০৩। নীতি এবং সুরক্ষা পরিস্থিতি পর্যায়ের প্রশিক্ষণঃ  এটি মৌলিক আত্মরক্ষা কৌশল অভিজ্ঞ হওয়ার জন্য গুরুত্বপূর্ণ। আপনি যদি যে কোন অর্শ রোগী তো অবস্থায় থাকতি হন, আপনি যে সময় ও পরিস্থিতি অনুসরণ করছেন তা বুঝতে হবে। 

০৪।  ব্যক্তিগত আত্মরক্ষনঃ  এটি বিভিন্ন উপায়ে উর্দঘন হতে পরিধান অথবা অন্যান্য  সংরক্ষণ উপায় হতে পারে, যা আপনার ব্যক্তিগত সুরক্ষা বাড়াতে সাহায্য করতে পারে। 

 এগুলি মৌলিক আত্মরক্ষা কৌশলের একটি কিছু দিক।  এই দক্ষতা গুলি সাধারিতা বা মৌলিক সুরক্ষা জনিত হতে পারে এবং সহজে বৃদ্ধি করার জন্য এটি গুরিতে অনুসরণ করা হতে পারে।

অফিসে আর্মুরা ভেঙ্গে ক্লান্ত বেশি গুলোকে আরাম দিন

ব্যায়াম
ব্যায়াম

 অফিসে আর মোরা ভেঙ্গে কাজ করার পর ক্লান্তি অনুভব করতে সহায়ক হতে পারে।  একটি দিনের শেষে আরাম পেতে এবং ক্লান্ত বেশি গুলি পুনরজীবনে ফিরিয়ে আনতে নিজের কিছু উপায় অনুসরণ করতে পারেনঃ

০১।  পোস্ট ও ফিস  এক্ষুণনতাঃ কাজের শেষে একটি পোস্ট অফিস এক্ষুণনতা স্থাপন করুন যাতে আপনি কাজের পর সম্পূর্ণ আলাদা হতে পারেন।  এটি আপনার মানসিক স্মৃতি উন্নত করতে সাহায্য করতে পারে এবং স্বাস্থ্যকর পরিস্থিতি তৈরি করতে সাহায্য করতে পারে।

০২।কাজের মধ্যে সান্নিধ্য এবং বিশ্রামঃ  কাজের মধ্যে কিছু বিশ্রাম এবং আপনার কাজের মধ্যে সান্নিধ্য স্থাপন করতে হতে পারে। নিয়মিতভাবে শোরুমে বা সার্কুলেটরি হাটা ডিস্ট্রেস বল বা যেকোনো অন্যান্য প্রিয় কাজে একটি ছোট বিরতি নেওয়া উপকারী হতে পারে।

০৩। সঠিক আপন ম্যানেজমেন্টঃ  আপনার কাজের সময় সঠিকভাবে ব্যবহার করার জন্য একটি সুস্থ সময় ব্যবস্থাপনা প্রয়োজন।  বৃক্ষতির নির্দিষ্ট সময়ে অবস্থান নেওয়া এবং কাজ শেষ করার জন্য একটি নির্দিষ্ট সময় নির্ধারণ করা উপকারী হতে পারে। 

০৪। মিড ডেই বা কর্মসংস্থানের মনোরম পরিবেশঃ  আপনি যদি কাজের জন্য একটি মনোরম এবং সুবিধার জন্য পরিবেশ তৈরি করতে পারেন তাদের ক্লান্ত হওয়ার সম্ভাবনা কম হয়ে যায়।

০৫।  শৈত্য ও যৌথভাবে কাজঃ প্রয়োজনে অন্যদের সাথে সম্প্রদান এবং কাজ ভাগাভাগি করা অথবা দক্ষতা প্রশিক্ষণ দেওয়া সাহায্য করতে পারে।

 এগুলো মিলিয়ে, আপনি অফিসে আরমুরা ভেঙ্গে কাজ করার পর আরাম অনুভব করতে সাহায্য করতে পারেন। 

আত্মবিশ্বাস বাড়াতে টিম স্পোর্টস

ব্যায়াম
ব্যায়াম

 টিম স্পোর্টস আত্মবিশ্বাস ভারতে একটি দক্ষ এবং অনুবাদ পূর্ণ উপায় হতে পারে কারণ এটি সম্পর্ক ও সহযোগিতা তৈরি করতে সাহায্য করতে পারে যা করে আত্মবিশ্বাস উন্নত করতে সাহায্য করতে পারে।  টিম স্পোর্টস এর মাধ্যমে আত্মবিশ্বাস ভারতে নিচের কিছু উপায় গুলি আপনার কাছে উপযোগী হতে পারে

০১। সহযোগিতা এবং কমিউনিকেশনঃ  ভালো সহযোগিতা এবং সঠিক কমিউনিকেশন আত্মবিশ্বাস উন্নত করতে সাহায্য করতে পারে।  টিমের সদস্যরা একে অপরকে সাপোর্ট করতে পারে সমস্যা সমাধান করতে সাহায্য করতে পারে এবং একে অপরের সাথে ভালো সম্পর্ক তৈরি করতে সাহায্য করতে পারে।

০২। কৌশল শেখা এবং বাচাই দেওয়াঃ কোন নতুন কাজ বা টিম সঙ্গে কাজ করার সময় মোকাবিলার জন্য এবং কাজে ভালো করতে কৌশল বাড়তি বা এর বিশেষ ক্ষেত্রে আত্মবিশ্বাস উন্নত করতে শিখতে হতে পারে।

০৩।  পজিটিভ রেইনফোর্সমেন্টঃ টিমের সদস্যদের মধ্যে এবং আপনার কাছে যে কোন ভালো করা কাজের জন্য প্রশংসা করা উচিত।  এটি অভ্যন্তরীণ আত্মবিশ্বাস ও একে অপরকে উৎসাহিত করতে সাহায্য করতে পারে।

০৪।  পরিমালোচনা এবং উন্নত মানের আত্মতৃপ্তিঃঅবশ্যই এবং আত্মবিশ্বাস মেলানোর জন্য টিমে কাজ করতে এবং আত্মতৃপ্তি প্রাপ্ত করতে সাহায্য করতে এবং এটির মাধ্যমে সমস্যা হলে তার সমাধান করতে একে অপরকে উৎসাহিত করতে পারে।

০৫।  ক্যাম্পিটিটিভিটির পরিসীমা স্থাপন করুনঃ টিমে সান্তনা বাড়াতে এবং আত্মবিশ্বাস উন্নত করতে কোন প্রতিষ্ঠানকে উত্তরাধিকারী হিসেবে নেওয়ার জন্য একটি সুসংগঠিত পরিসীমা উপযোগী হতে পারে।

 এই উপায়গুলি সমস্ত টিম স্পর্শে আত্মবিশ্বাস উন্নত করার জন্য উপকারী হতে পারে।  এটি যেতে সাহায্য করতে পারে যখন সম্ভাবনা হতে পারে না বা কাজটি কঠিন হতে থাকে। 

শরীর ও মনের অতি উপকারী যোগব্যায়াম

ব্যায়াম
ব্যায়াম

 শরীর ও মনের অতি উপকারী যোগব্যায়ামের উপকারিতা অনেকগুলি রয়েছে। এটি শারীরিক স্বাস্থ্য, মানসিক স্বাস্থ্য এবং কাজের জন্য উপকারী হতে পারে। এই যোগব্যায়াম প্রক্রিয়াগুলি শরীর এবং মানসিক সুস্থতা উন্নত করতে সাহায্য করতে পারে।

০১। যোগব্যায়াম এবং মানসিক স্বাস্থ্যঃ

মেডিটেশনঃ  ধ্যান এবং মেডিটেশন মানসিক সুস্থতা উন্নত করতে সাহায্য করতে পারে বিরতা এবং মনোবল বাড়াতে পারে।

 ইয়োগাঃ  ইয়োগা মানসিক শান্তি িক শারীরিক স্বচ্ছতা এবং উন্নত শারীরিক দক্ষতা উন্নত করতে সাহায্য করতে পারে।

০২। শারীরিক অবশ্য তা এবং এনার্জি বৃদ্ধিঃ

 অব্যাহাত বা চালনা যোগব্যায়ামঃ  অব্যাহত এবং চালনা যোগব্যায়াম একটি সহজ এবং কার্যকরী পদ্ধতি হতে পারে শারীরিক সুস্থতা এবং এনার্জি বৃদ্ধির জন্য।

০৩। দলীয় বায়ুযোগ বা ডেক্স যোগব্যায়ামঃ দলীয় ভাই যুগ বা ট্যাক্স যোগব্যায়াম বৈচিত্র্য এবং প্রফেশনাল জীবনে কাজ করার সময়ে শারীরিক ক্ষমতা বৃদ্ধি করতে সাহায্য করতে পারে।

০৪।  শব্দ যোগ ব্যায়াম বা নীতি প্রশিক্ষণঃ  সচেতনতা এবং পুনরায় চিন্তা স্থাপন করতে শব্দ যোগব্যায়াম বা নীতি প্রশিক্ষণ উপকারী হতে পারে।

০৫।  স্থানিক উপকারী যোগব্যায়ামঃ অল্প সময়ের জন্য স্থানিক উপকারীর যোগব্যায়াম প্রস্তুতি এবং কর্মচারী তৈরি করতে উপকারী হতে পারে।

 এই প্রক্রিয়াগুলো মানসিক এবং শারীরিক স্বাস্থ্য উন্নত করতে এবং দৈহিক এবং মানসিক অবস্থান উন্নত করতে সাহায্য করতে পারে। এ প্রক্রিয়াগুলি আপনি দৈহিক স্বাস্থ্য কে উন্নত করে তোলার জন্য প্রতিদিন একটি সময় নিতে সাহায্য করতে পারেন।

শারীরিক শিক্ষা কাকে বলে

খেলাধুলা

দার্জিলিং

তাজমহল

ব্যায়ামের উপকারিতা ও অপকারিতা

প্রতিদিন কি কি ব্যায়াম করা উচিত

বয়স পঞ্চাশের পর এই ব্যায়ামগুলো অবশ্যই করতে হবে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *